প্রতিষ্ঠান কর্তৃকপেশা উন্নয়নের উদ্যোগ গ্রহণ

আজকে আমাদের আলোচনার বিষয় প্রতিষ্ঠান কর্তৃকপেশা উন্নয়নের উদ্যোগ গ্রহণ

প্রতিষ্ঠান কর্তৃকপেশা উন্নয়নের উদ্যোগ গ্রহণ

 

প্রতিষ্ঠান কর্তৃকপেশা উন্নয়নের উদ্যোগ গ্রহণ

 

প্রতিষ্ঠান কর্তৃকপেশা উন্নয়নের উদ্যোগ গ্রহণ

প্রতিষ্ঠানে কর্মরত কর্মীদের দক্ষতা এবং যোগ্যতা বৃদ্ধির জন্য এবং ভবিষ্যতে দায়িত্বের সাথে কার্যক্রম সম্পাদনের জন্য প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে কিছু উদ্দ্যোগ গ্রহণ করা যেতে পারে। Gary Dessler তার লেখা মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনা (Human Resource Mangement) বইয়ে কর্মীদের পেশা উন্নয়নের জন্য নয়টি (৯টি) সুনির্দিষ্ট উদ্দ্যোগের কথা উল্লেখ করেছেন। এই উদ্দ্যোগগুলো হলো :

ব্যক্তিগত বাজেট প্রদান (Provide individual budget):

প্রতিষ্ঠানের প্রত্যেক কর্মীকে ব্যক্তিগতভাবে আলাদা বাজেট প্রদান করতে হবে। কর্মী তার পেশা, ব্যক্তিগত দক্ষতা ও যোগ্যতা উন্নয়নের জন্য এই বাজেট খরচ করতে পারবে। তবে প্রতিষ্ঠানিক লক্ষ্য রাখতে হবে যে কোনোভাবেই যেন প্রস্তাবিত বাজেট অতিক্রান্ত না হয় ।

বিভিন্ন দায়িত্বপালনে উৎসাহ প্রদান (Encourage to role play):

প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের বিভিন্ন দায়িত্ব পালনে উৎসাহ প্রদান করতে হবে। কর্মীরা যদি তাদের নিজের ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করা ছাড়াও অন্যান্য দায়িত্ব বদলি বা খন্ডকালীনভাবে পালন করে তাহলে তাদের দূর্বলতা এবং শক্তির দিকগুলোকে চিহ্নিত করা সম্ভব হয় ।

কর্পোরেট সংস্কৃতি স্থাপন (Establish a corporate culture):

প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের পেশা উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা পরামর্শকের মাধ্যমে বিভিন্ন কোর্স বা প্রোগ্রামে অধ্যয়ন করাতে পারে। পারস্পরিক তথ্য ও জ্ঞান বিনিময়ের জন্য প্রতিষ্ঠানকে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা পরামর্শকদের সাথে সহযোগিতামূলক সম্পর্ক গড়ে তোলা প্রয়োজন ।

সংগঠিত দলকে পেশা উন্নয়নে সহযোগিতা (Help organised career success teams ) :

প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন বিভাগ থেকে আগত কর্মীরা নিজেদের পেশা উন্নয়নের জন্য একত্রিত হয়ে নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ ও পারস্পরিক সহযোগিতা বিনিময় করে। পেশা পরামর্শকগণ সাধারণত এই দলকে পেশা উন্নয়নের জন্য নানা ধরনের পরামর্শ ও সহযোগিতা প্রদান করে থাকেন।

 

Google News
আমাদের গুগল নিউজ ফলো করুন

 

অনলাইন অথবা অফলাইন পেশাকেন্দ্র (Online or offline career centre):

এই ব্যবস্থার মধ্যে আছে অনলাইন এবং অফলাইন লাইব্রেরি, পেশা উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন উপকরণ, বিষয়ভিত্তিক বিভিন্ন কর্মশালা এমনকি ব্যক্তিকেন্দ্রিক প্রশিক্ষক নিয়োগ দেওয়া ।

পেশা উন্নয়ন প্রশিক্ষক (Coach for career development) :

পেশা উন্নয়নের জন্য প্রশিক্ষকের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের জন্য প্রশিক্ষণ কর্মসূচির ব্যবস্থা করা যেতে পারে। প্রতিষ্ঠানের তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারকে পূঞ্জিভূত করার জন্য ছোট ছোট তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক দল গড়া এবং প্রতিষ্ঠানের কর্মসূচির আমূল পরিবর্তনের জন্য প্রশিক্ষণ কর্মসূচির প্রচলন খুবই জরুরি।

এই প্রশিক্ষণের মাধ্যমে মূলত কর্মীদের নতুন নতুন প্রযুক্তির সাথে পরিচয় করানো এবং খাপ খাওয়ানোর ব্যবস্থা করা হয়। এক্ষেত্রে প্রশিক্ষকগণ সাধারণ কর্মীদের পেশা পরামর্শ ও উন্নয়নের পরামর্শ বা উপদেশ দিয়ে থাকেন। এতে কর্মীদের পেশা উন্নয়নের পাশাপাশি প্রাতিষ্ঠানিক উন্নয়ন সাধিত হয়।

পেশা পরিকল্পনা কর্মশালার প্রবর্তন (Provide career planning workshop ) :

পেশা পরিকল্পনা কর্মশালাগুলোতে প্রধানত তিনটি উপাদান থাকে। যথা- আত্মমূল্যায়ন, পরিবেশ মূল্যায়ন এবং লক্ষ্য ও কর্ম পরিকল্পনা নির্ধারণ। পেশা পরিকল্পনা কর্মশালার মাধ্যমে অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে কর্মীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা হয় এবং তাদের পেশা পরিকল্পনা ও উন্নয়ন নিয়ে বিভিন্ন প্রকার পরামর্শ ও দিক-নির্দেশনা প্রদান করা হয়।

কম্পিউটারকেন্দ্রিক তথ্য ব্যবস্থাপনা (Computer based information system):

কম্পিউটারভিত্তিক তথ্য ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের পেশা পরিকল্পনা ও পেশা উন্নয়নে কার্যকরি ভূমিকা পালন করে। কর্মীদের পেশাসংক্রান্ত পূর্ব ইতিহাস যেমন- উৎপাদন দক্ষতা, যোগ্যতা, উদ্দেশ্য এবং অন্যান্য বিষয় কম্পিউটারে জমা রাখা হয় এবং প্রয়োজন অনুযায়ী কর্মীদের এসব তথ্য রেখাচিত্রের মাধ্যমে উপস্থাপন করা হয়। এভাবে প্রত্যেক কর্মী সম্পর্কে একটি সামগ্রিক ধারণা পাওয়া যায় এবং সেই অনুযায়ী পেশা পরিকল্পনা করা হয়।

 

প্রতিষ্ঠান কর্তৃকপেশা উন্নয়নের উদ্যোগ গ্রহণ

 

সুযোগ কাজে লাগানো কর্মসূচী (Opportunity knocks program):

এই কর্মসূচির মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের উৎসাহ প্রদান করা যাতে তারা তাদের পেশা উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন সুযোগকে কাজে লাগাতে পারে।

আরও দেখুন :

Leave a Comment